আমি যাচ্ছি বাবা, আমি যাচ্ছি
চোখ মুছে মুখ তোলো
স্নেহের বাঁধন খোলো
এবার তোমায় দিতেই যে হয়
যাবার অনুমতি।
বাবা খেয়াল রেখো
তুমি তোমার প্রতি।।
আদর সোহাগ দিয়ে যদি
করলি আমায় বড়
কেন তবে এমন করে
কন্যাকে পর করো।
এই যদি গো নিয়ম-নীতি
এই সমাজের বিধান
হাসি মুখে করো বাবা
কন্যা সম্প্রদান।
তবে কেন কান্না চোখে
এই কোন অনুভূতি?
বাবা খেয়াল রেখো
তুমি তোমার প্রতি।।
অফিস যাবার সময় যখন
থাকব না আর আমি
চশমা নিতে ওষুধ খেতে
ভুলো না গো তুমি।
বুক যে আমার যাচ্ছে ভেঙ্গে
মন মানে না মানা
কেমন করে থাকব ছেড়ে
নেই যে আমার জানা।
ওই যে আমার মা দাঁড়িয়ে
দেহেতে নাই প্রাণ
যেন বুকটা চিড়ে যাচ্ছে নিয়ে
কেউ কলিজাখান।
তুমিও তো মেয়ে মা গো
জানোই পরিণতি।
(মাগো) ওমা খেয়াল রেখো
তুমি বাবার প্রতি।।

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}

যদিও রজনী পোহালো তবুও
দিবস কেন যে এলো না এলো না।
সজন মেঘের পরান ঝরিয়া
বরিষণ কেন হলো না হলো না।।
লোকে মরে কলঙ্কীনি নাম দিয়ে
বোঝে না তো কত জ্বালা মন নিয়ে
বলে বলুক লোকে মানি না মানি না
কলঙ্ক আমার ভালো লাগে
পিরিতি আগুনে জীবন সঁপিয়া
জ্বলে যাওয়া আজ হলো না হলো না।।
এমন পথ চলা ভালো লাগে না
আমার অঙ্গ দোলে তরঙ্গে তরঙ্গে
কেউ না বাঁধে যদি পথ হারাবে নদী
ভালো লাগে না লাগে না।
ভালোবেসে মরি যদি সেও ভালো
ঘর বেঁধে যদি মরি আরো ভালো
এসো এসো হে বধূ জ্বলিতে জ্বলিতে
মরণ আমার ভালো লাগে
কপালের লিখা সিঁদুরে ঢাকিয়া
পথ চাওয়া আজ হলো না হলো না।।

[গানটি গেয়েছেন লতা মুঙ্গেশকর]

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}

শুধু পথ চেয়ে থাকা
রঙে রঙে ছবি আঁকা
কবে তুমি আসবে বলে।
মনে মনে কাছে ডাকা
দুয়ার আর খুলে রাখা
কবে তুমি আসবে বলে।।
তোমারই কারণে সাজি এত যে
সাজি তবুও হৃদয় কাঁপে এই তো লাজে
সে লাজ দ্বিগুণ হয় যদি না আসো
মালা মোর জ্বালা হয়ে জ্বলে।।
আমি স্বপ্ন কাজল চোখে আঁকি
সে কাজল কলঙ্ক হয়ে যায়।
আহা যদি না আমার দুটি আঁখি
ওই আঁখি পল্লবে মিশে যায়
স্বাধীন প্রদীপ আমি জ্বালায়ে রাখি
সে আলোয় পথ পানে চেয়ে থাকি
সে আলো আগুন হয় যদি না আসো
নেভে না সে নয়ন জলে।।

[গানটি গেয়েছেন রুমা গুহঠাকুরতা]

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}

এ কি চঞ্চলতা
জাগে আমার মনে
ভালো লাগে কত ভালো লাগে।।
এই তো প্রথম দ্বার খুলে
ছুটে আমি এসেছি
ফুলে ফুলে ওই হাসি দেখে
আমিও যে হেসেছি
তারা ভরা এই রাত
আমি দেখিনি কখনো আগে।।
ওগো বাঁশী শোনো
আজ বুকে সুর ভরে দাও
আমার আনন্দ আজ
তুমি শুধু জেনে নাও।
কিছু নেই তবু আছি আমি
আজ যেন মেনেছি
ভালো লাগা ওগো কারে বলে
এই তো প্রথম জেনেছি।
ভরে গেছি আমি আজ
এই মায়াভরা অনুরাগে।।

[গানটি গেয়েছেন হেমন্ত মুখোপাধ্যায়]

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}

আজ আছি কাল কোথায় রব
কোথায় রব কে জানে
কাল কি হবে তাই ভেবে আর
মিছেই কেন আকুল হব।।
আনন্দ আর গানে গানে
এ ক’টি দিন কাটিয়ে যাও।
জীবনের এই পাঠশালাতে
পাঠশালাতে উৎসবে প্রাণ মিটিয়ে নাও।
ক্ষণিক হলেও দু’জনারে
দুজন কিনে লব।।
তুমি আমি রব না তো কেউ
আয়ুর প্রদীপ হবে ক্ষীণ
তাই তো বলি হেসে খেলে
মন ভরিয়ে যাক না দিন
আছি দুজন সবার চেয়ে
এই তো অভিনব।।

[গানটি গেয়েছেন আলপনা বন্দোপাধ্যায়]

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}

এক দুই দিন
চলি (শুনি) যে সারা দিন।
হৃদয়ে বাজে বীণ
বুঝি সে জানে।
ও মন ভুলেছে, দুয়ার খুলেছে
তারই ছোঁয়া সেই গানে।।
চোখেতে সহসা এই কি আলো
হারিয়ে গেলো যে সবই কালো
সেই আলোকে প্রতি পলকে
তারই ছবি শুধু কাছে টানে।।
ইচ্ছে করে হয়ত কিছু করি
নয় তো দেখি স্বপ্ন আহামরি
এ যেন পৃথিবী খুশীর মেলা
আকাশ ভরে কত রঙের খেলা
এই বসন্তে পথেরই প্রান্তে
পায়ে পায়ে সে ছন্দ আনে।।

[গানটি গেয়েছেন মান্না দে]

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}

তোমারই বাঁকা ও চোখ
ঝিলিক মারে ঝিকিমিকি।
জ্বলছে এ বুকে যে
তুষের আগুন ধিকিধিকি।।
একি বলো সইতে পারি
তবু না কইতে পারি।
মিছে কি ভেবে মরি
ও মন পাবো ঠিকই।
এখনো তো আমি কি চাই
বুঝেও তুমি বোঝোনি কি।।
জানি না মনে মনে
কি যে তুমি ফন্দি করো।
নাহয় আমায় তুমি
ওই নজরে বন্দী করো।
তবু কি থাকবে সরে
দূরে কি রাখবে মোরে।
মনে হয় এবার আমি
আরো ভালোবাসতে শিখি।
এখনো তো আমি কি চাই
মনে মনে খোঁজোনি কি।।

[গানটি গেয়েছেন শ্যামল মিত্র]

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}