একটু ভালো করে বাঁচবো বলে আর একটু বেশী রোজগার
ছাড়লাম ঘর আমি ছাড়লাম ভালোবাসা আমার নীলচে পাহাড়।
পারলো না কিছুতেই তোমার কোলকাতা আমাকে ভুলিয়ে দিতে
পাহাড়ি রাস্তার ধারের বস্তির আমার কাঞ্চনকে।
কাঞ্চন জানা কাঞ্চন ঘর, কাঞ্চনজংঘা কাঞ্চন মন
তো পাইলে সোনা অনু লইয়ো মউল্লা হাঙচুকাঞ্চন।।
সোনার খোঁজে কেউ কতদূর দেশে যায় আমি কোলকাতায়
সোনার স্বপ্ন খুঁজে ফিরি একা একা তোমাদের ধর্মতলায়।
রাত্রির নেমে এলে তিনশো বছরের সিমেন্টের জঙ্গলে
ফিরে চলে যাই সেই পাহাড়ি বস্তির কাঞ্চনের কোলে।
জং ধরা রঙ চটা পার্কের বেঞ্চিটা আমার বিছানা
কখন যে তুলে নিয়ে গিয়েছিলো আমাকে তোমাদের থানা
তিন মাস জেল খেটে এখন আমি সেই থানার দারোয়ান
পারবো না ফিরে পেতে হয়তো কোনোদিন আমার সেই কাঞ্চন।
কাঞ্চন জানা কাঞ্চন ঘর, কাঞ্চনজংঘা কাঞ্চন মন
তো পাইলে সোনা অনু লইয়ো মউল্লা হাঙচুকাঞ্চন।।
বেড়াতে যদি তুমি যাও কোনোদিন আমার ক্যালিংপঙ
জেনে রেখো শংকর হোটেলের ভাড়া ট্যুরিস্ট লজের থেকে কম
রাত্রির নেমে এলে আসবে তোমার ঘরে চুল্লিটা জ্বালিয়ে দিতে
আর কেউ নয় সে যে আমার ফেলে আসা নীলচে পাহাড়ি মেয়ে।
বলো না তাকে আমি দারোয়ান শুধু বলে করছি ভালোই রোজগার
ঐ বস্তির ড্রাইভার চিগমির সাথে যেন বেঁধে না ফেলে সংসার
আর কিছু টাকা আমি জমাতে পারলে যাবো যাবো ফিরে
পাহাড়ি রাস্তার ধারের বস্তির আমার নিজের ঘরে।
আর যদি দেখ তার কপালে সিঁদুর বলো না কিছু তাকে আর
শুধু এই সত্তর টাকা তুমি যদি পারো গুজে দিও হাতে তার
ট্রেনের টিকিটের ভাড়াটা সে দিয়েছিলো কানের মাকড়ী বেঁচে
ভালোবাসার সেই দাম তুমি দিয়ে দিও আমার কাঞ্চনকে।।
কাঞ্চন জানা কাঞ্চন ঘর, কাঞ্চনজংঘা কাঞ্চন মন
তুমি যাকে বলো সোনা আমি তাকে বলি কাঞ্চন।
কাঞ্চন জানা কাঞ্চন ঘর, কাঞ্চনজংঘা কাঞ্চন মন
তো পাইলে সোনা অনু লইয়ো মউল্লা হাঙচুকাঞ্চন।।

[গানটি গেয়েছেন অঞ্জন দত্ত]

{গানটি না পড়া গেলে বিকল্প লিংক}
{If you can’t read it, click here}

Advertisements